শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১২:১৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদঃ
সর্বশেষ সংবাদঃ
মহম্মদপুরে বৃদ্ধকে জনসম্মুখে মাথা ন্যাড়াসহ গোঁফ কেটে দেওয়ার অপরাধে ত্রিনাথ শীলকে আটক করেছে পুলিশ মহম্মদপুরের দীঘা ইউনিয়নের দীঘা গ্রামে স্বামী -স্ত্রী বিষ পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা – ভিভিও লিংক বন্ধুকে হত্যা করে, বন্ধুর বাইকেই ঘুরে বেড়াল তার বান্ধবীকে নিয়ে। মাগুরা রিপোর্টার্স ইউনিটির নতুন সদস্য সংগ্রহের জন্য প্রাথমিক সদস্য ফরম বিতরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। মহম্মদপুরের চাকুলিয়ায় আকস্মিক হামলায় আহত ৬ বাড়িঘর ভাঙচুর লুটপাট ! মাগুরার শ্রীপুরে ১০ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক মাগুরা রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি ভেঙ্গে, আহ্বায়ক কমিটি গঠন মহম্মদপুরে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত মাগুরা রিপোর্টার্স ইউনিটির ঈদ পুনর্মিলন উদযাপন গ্রিন মাগুরা ক্লিন মাগুরা আন্দোলনের ঘোষণা দিলেন জেলা প্রশাসক মহম্মদপুরে বেসরকারি ভাবে আ:মান্নান চেয়ারম্যান নির্বাচিত মহম্মদপুরে ছাত্র-ছাত্রী বিহীন চলছে এমপিও প্রতিষ্ঠান ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ সাধারণ নির্বাচন উপলক্ষে বিশেষ আইন-শৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠান মাগুরায় পুলিশের অভিযানে দুইটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ আটক তিন মহম্মদপুরে ৩২ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ পুলিশের হাতে আটক ১ মহম্মদপুরে দেশীয় অস্ত্র সহ ডাকাত দলের সদস্য গ্রেফতার শ্রীপুরে বিশেষ আয়োজনে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে ব্যতিক্রমী আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো মাগুরা রিপোর্টার্স ইউনিটের বাৎসরিক আনন্দ ভ্রমণ শেষ পৌষের কনকনে শীতে কাঁপছে মাগুরা! মাগুরার মহম্মদপুরে শতবর্ষী ঐতিহ্যবাহী বড়রিয়ার মেলা শুরু!
Notice :
প্রিয় পাঠক   দৈনিক মাগুরার কথা   অনলাইন নিউজ পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম । গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়ম মেনে বস্তু নিষ্ঠ তথ্য ভিত্তিক সংবাদ প্রচার করতে আমরা বদ্ধ পরিকর ।  বি:দ্র : এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা,  ছবি ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি । এখানে ক্লিক করুণ Apps  

প্রতিবন্ধী শিশু মুরাদের পাশে দাঁড়ালেন মানবিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন

আজিজুর রহমান, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি / ৪৩৭ বার পঠিত হয়েছে।
নিউজ প্রকাশ : সোমবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২২, ৬:৫৩ অপরাহ্ন

 

কেশবপুরে হতদরিদ্র পরিবারের ৯ বছর বয়সের প্রতিবন্ধী শিশু মুরাদ হোসেন বাবুর পাশে দাড়িয়ে একটি হুইল চেয়ার প্রদান করে মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন।
২৪ জানুয়ারী (সোমবার) দুপুরে উপজেলা পরিষদ কার্যালয় চত্তরে ওই প্রতিবন্ধীকে ১টি হুইল চেয়ার প্রদান করা হয়।জানা গেছে, উপজেলার ১১নং হাসানপুর ইউনিয়নের বুড়িহাটি গ্রামের দিনমজুর জাকির হোসেনের ছেলে মুরাদ হোসেন বাবু (৯) জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী। জন্মের পর থেকেই প্রতিবন্ধী শিশুকে নিয়ে বিপাকে পড়েছেন পিতা মাতা। শিশু মুরাদের হাত-পা চিকন ও বাঁকা হওয়ায় হামাগুড়ি দিয়ে চলাফেরা করতে পারেনা। একেতো শারীরিক প্রতিবন্ধী তারপরও কথা বলতে পারেনা সে। দারিদ্র পিতা পরের ক্ষেতে কামলা খেটে জীবিকা নির্বাহ করে। অল্প উপার্জনের মধ্যে দিয়ে সংসার চলে অভাব-অনাটনে। দ্রারিদ্রতার কষাঘাতে দিনমজুর পিতার পক্ষে প্রতিবন্ধী পুত্রের জন্য একটি হুইল চেয়ার কিনে দেওয়া সম্ভব ছিলোনা। জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার মানুষের কাছে প্রতিবন্ধী ছেলের জন্য অসহায় পিতামাতা একটি হুইল চেয়ারের সহযোগিতা চেয়েও সেটি পাইনি, পেয়েছে শুধুই আশ্বাস। শুধুমাত্র একটি হুইল চেয়ার হলেই প্রতিবন্ধী মুরাদের জীবনের অনেকটা কষ্ট কমে যাবে। ছেলের চলাফেরা করার জন্য একটি হুইল চেয়ারের আকুতি জানান  প্রতিবন্ধীর পরিবার। শিশু প্রতিবন্ধীর বিষয়টি নিয়ে রবিবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেনের কাছে বিনয়ের সহিত একটি হুইল চেয়ারের জন্য জানান এবং লিখিত আবেদন করেন। বিষয়টি হৃদয় বিদারক হওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে এমন একজন অসহায় প্রতিবন্ধীর একটি হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করতে ইচ্ছা পোষণ করেন। এবং অসহায় হতদরিদ্র্য পরিবারকে তার কার্যালয়ে নিয়ে আসতে বলেন। উপজেলার নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন প্রতিবন্ধীর মায়ের উপস্থিতিতে ওই হতদরিদ্র পরিবারের হাতে একটি হুইল চেয়ার তুলে দেন এবং প্রতিবন্ধীর সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেনও তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহামদ রিজিবুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ বজলুর রশিদ, ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটি, গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থা কেশবপুর উপজেলার শাখার সভাপতি সাংবাদিক শামীম আখতার মুকুল, বেসরকারী সংস্থা ওয়ার্ডের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ আকমাল হোসেন প্রমূখ। হুইল চেয়ার পেয়ে প্রতিবন্ধী শিশু মুরাদ এর মাতা মুসলিমা বেগম হাস্যোজ্জল মুখে বলেন, জন্ম থেকেই আমার ছেলে শারীরিক প্রতিবন্ধী। এমনকি কথা বলতে পারে না। ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে আমার ছেলে প্রতিবন্ধী হওয়ায় স্বামী-স্ত্রী মিলে তার কখনো অযত্ন অবহেলা করেনি। ছেলে বড় হওয়ায় এখন অনেক কষ্ট হয় তাকে নিয়ে চলাফেরা করতে। সংসারে অভাব অনাটনের কারণে তাকে হুইল চেয়ার কিনে দেওয়ার মতো সামর্থ্য আমাদের ছিলো না।হুইল চেয়ারটি পেয়ে এখন থেকে ছেলে ও আমাদের অনেকটা কষ্ট কম হবে। আমার ছেলেকে হুইল চেয়ার দিয়ে সহায়তা করায় সারাটি জীবন ইউএনও স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞ প্রকাশ করেন। তারই পাশাপাশি স্যার সহ গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মীদের জন্য সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।এ ব্যাপারে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন বলেন, শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশু মুরাদ এর বিষয়টি গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থার সভাপতির মাধ্যমে আমার দপ্তরে লিখিত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিবন্ধী মুরাদকে ১টি হুইলচেয়ার প্রদান করা হয়েছে। মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে শিশু প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার দিতে পেরে নিজেকে ধন্য বলে মনে করছি। আমি তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি। আত্মমানবতার সেবায় প্রতিবন্ধী ও অসহায় মানুষের জন্য আগামীতেও উপজেলা প্রশাসনের এমন ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।


এই বিভাগের আরও খবর
এক ক্লিকে বিভাগের সবখবর
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!